ঘোড়ার শোডাউনে নৌকার হামলা, পুলিশসহ আহত ১৫

হাতিয়া প্রতিনিধি:নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার ১নং হরণী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনি প্রচারণাকালে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান (ঘোড়া প্রতীকের) প্রার্থীর ওপর হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে এক পুলিশ কর্মকর্তাসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ রাতে অভিযান চালিয়ে ৬ জনকে আটক করে। গতকাল শনিবার (২৮ মে) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে হাতিয়া বাজারে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন, পুলিশের বিশেষ শাখার সহকারী উপ-পরিদর্শক কাউসার, ১নং হরণী ইউনিয়নের সদস্য প্রার্থী সালা উদ্দিন, মাহাবুবুর রহমান, আলমগীর হোসেন, ছিদ্দিক উল্যাহ, স্বতন্ত্র ঘোড়া প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থক নিজাম উদ্দিন, মো. হানিফ, সানা উল্যাহ, মো. নিজামসহ অন্তত ১৫ জন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১৫ জুন হাতিয়ার ১নং হরণী ইউনিয়নের নির্বাচনকে সামনে রেখে শনিবার বিকেলে প্রচারণায় নামে ঘোড়া প্রতীকের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মুশফিকুর রহমান। তারা মোটরসাইকেল শোডাউন নিয়ে হাতিয়া বাজার গেলে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আক্তার হোসেনের সমর্থকরা পথরোধ করে । এতে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার (ডিএসবি) সহকারী উপ-পরিদর্শক কাউসার, কয়েকজন মেম্বার প্রার্থী ও স্বতন্ত্র ঘোড়া প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থীর লোকজন আহত হয়। এ সময় হামলাকারীরা অন্তত ৫টি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মুশফিকুর রহমান আরটিভি নিউজকে জানিয়েছেন, নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আক্তার হোসেনের লোকজন তার প্রচারণায় হামলা চালায়। এ সময় কযেকজন মেম্বারপ্রার্থীসহ তার অন্তত ১৪ সমর্থক আহত হয়।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে আক্তার হোসেন জানান, তিনি ঘটনার সময় নিজ বাসায় ছিলেন। কে বা কারা হামলা করেছেন কিছুই জানেন না। হামলার সঙ্গে তার কোনো কর্মী সমর্থক জড়িত ছিলো না।

হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমির হোসেন জানান, ঘটনার পরপরই পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৬ জনকে আটক করে। হামলায় এক পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। এই ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে একটি মামলা দেওয়ার প্রস্তুতি চলছে। পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক। অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here