বন্ধুর সঙ্গে রাবার বাগানে ছাত্রী, নির্জনে নিয়ে সর্বনাশ করল ৫ যুবক

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় রাবার বাগানে ছেলে বন্ধুর সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন দশম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চারজনের নামসহ অজ্ঞাত আরো কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন ভুক্তভোগী ছাত্রীর বাবা। মামলার পর রাতেই অভিযান চালিয়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িত মুকিদ মিয়া ও আব্দুছ ছত্তারকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

গ্রেফতার ৩৫ বছর বয়সী মুকিদ একই উপজেলার ব্রাহ্মণবাজারের বাসুদেবপুরের মাহমুদ মিয়ার ছেলে ও ১৯ বছরের আব্দুছ ছত্তার লংলা খাস নতুন বস্তির বাসিন্দা মো. শমসের মিয়ার ছেলে।

বাকি আসামিরা হলেন- লংলা খাস নতুন বস্তির বাসিন্দা মো. শমসের মিয়ার ছেলে ১৯ বছরের আব্দুছ ছত্তার, হিঙ্গাজিয়া চা বাগানের বড় লাইন এলাকার মছদ্দর আলীর ছেলে ২৫ বছরের মোস্তফা মিয়া ও অজ্ঞাত আরো একজন।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, ২৫ মে বিকেলে বিদ্যালয়ের ছুটি শেষে ছেলে বন্ধুর সঙ্গে উপজেলার হিঙ্গাজিয়া রাবার বাগানে ঘুরতে যান ওই ছাত্রী। এ সময় সেখানে তাদের ভয়ভীতি দেখিয়ে নির্জন স্থানে নিয়ে যান ওই পাঁচ যুবক। এরপর সঙ্গে থাকা বন্ধুর হাত-মুখ বেঁধে ওই কিশোরীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করেন তারা। এতে ওই ছাত্রী জ্ঞান হারালে সেখানে ফেলে রেখে যান। জ্ঞান ফেরার পর রাতে বাড়িতে ফিরে অভিভাবকদের বিষয়টি জানান ভুক্তভোগী ছাত্রী।

কুলাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিনয় ভূষণ রায় বলেন, এ ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে পাঁচজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন ভুক্তভোগী ছাত্রীর বাবা। ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত অভিযোগে দুজনকে গ্রেফতার করে শুক্রবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার মুকিদ ও ছত্তার ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছেন। বাকিদেরও গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here