দুই লাখ টাকায় হাড়িভর্তি সোনা দেওয়ার প্রলোভন, তারপর…

বাউফল প্রতিনিধি: মাত্র দুই লাখ টাকা দিলেই ঘরের মেঝের মাটি খুঁড়ে হাড়ি ভর্তি সোনা দেওয়া হবে- এমন প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন মানুষকে ঠকানো মো. রুবেল মোল্লা (৪২) নামের এক প্রতারককে আটক করেছে পুলিশ।

আজ বৃহস্পতিবার বাউফলে র কালাইয়া ইউনিয়নের পূর্ব কালাইয়া নবরত্ন গ্রাম থেকে তাকে আটক করা হয়। প্রতারক রুবেল ভোলার বোরহান উদ্দিন উপজেলার আব্দুর রব মোল্লার ছেলে।

স্থানীয় ও প্রতারিত হওয়া পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, গত তিন মাস পূর্বে রুবেল  বাউফলের কালাইয়া ইউনিয়নে আসে। রুবেল নিজেকে বিশেষ ক্ষমতার মালিক দাবি করে কালাইয়া ইউনিয়নের পূর্ব কালাইয়া নবরত্ন গ্রামের এক বাড়িতে আত্মীয় সম্পর্ক করে বসবাস শুরু করেন। এক পর্যায়ে ওই বাড়ির সদস্যদের বলেন, তার সঙ্গে ঝুমকা ও রতনমালা নামে দুই পরী থাকে। ওই পরী দিয়ে মাটির নীচের গুপ্তধন বের করে আনা সম্ভব। তাদের ঘরের মেঝের মাটির নীচে সোনা ভর্তি ৩টি হাড়ি রয়েছে জানিয়ে প্রতি হাড়িতে দুই লাখ টাকা দিতে পারলে সোনাভর্তি ওই তিনটি হাড়ি উঠিয়ে আনা যাবে।

গত বুধবার (২৫ মে) বাড়ির সদস্যা মুক্তা বেগম (২৫) বলেন, আমরা প্রতারক রুবেলকে বিশ্বাস করে  ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা দিলে রাতের বেলা ঘর বন্ধ করে মেঝের মাটি খুঁড়ে একটি মাটির হাড়ি বের করে, যার মধ্যে বেশ কিছু অলংকার দৃশ্যমান হয়। অলংকারগুলো স্থানীয় একটি স্বর্ণের  দোকানে নিয়ে গেলে অলংকারগুলো দস্তার তৈরী বলে জানানো হয়। এ ঘটনার পর প্রতারক রুবেলকে টাকার জন্য চাপ দেয়া হয় এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধিকে জাননো হয়। পরে কালাইয়া ইউপি’র প্যানেল চেয়ারম্যান মো. ফিরোজ হাওলাদার পুলিশে খবর দিলে পুলিশ প্রতারক রুবেল মোল্লাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রতারক রুবেল এলাকার বিভিন্ন মানুষের থেকে প্রতারনা করে ১০ লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

এবিষয়ে রুবেল বলেন, মুক্তাদের কাছ থেকে আমি মাত্র ২০ হাজার টাকা নিয়েছি। সোনার অলংকার কিভাবে দিবেন! এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমার মধ্যে অসীম শক্তি রয়েছে। যার মাধ্যমে আমি হাড়ির এই গহনাগুলো সোনায় পরিণত করতে পারি। কিন্তু এই লোকগুলো আমাকে সেই সময় দিতে চায় না।

বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আল মামুন বলেন, প্রতারককে আটক করে নিয়ে আসা হয়েছে। এ ঘটনায় প্রতারিত পরিবারের পক্ষ থেকে মুক্তা বেগম বাদী হয়ে মামলা করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here