সভাপতি ও প্রধান শিক্ষক জেলে, তদন্তে ৩ সদস্যের কমিটি

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার বান্ধাবাড়ি জগৎবন্ধু পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠ মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে ঠিকাদের কাছে ভাড়া দেয়ার ঘটনায় ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কোটালীপাড়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তাকে আহবায়ক, উপজেলা শিক্ষা অফিসার ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারকে সদস্য করে ৩ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী ৭ কর্ম দিবসের মধ্যে তদন্ত কমিটিকে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে।

কোটালীপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফেরদাউস ওয়াহিদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, বিষয়টি তদন্ত করে আগামী ৭ কর্মদিবসের মধ্যে রিপোর্ট জমা দেয়ার জন্য তদন্ত কমিটিকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানান ওই কর্মকর্তা।

উল্লেখ্য, কোটালীপাড়া উপজেলার বান্ধাবাড়ি জগৎবন্ধু উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠ মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে ঠিকাদের কাছে ভাড়া দিয়েছেন স্কুল কর্তৃপক্ষ। বিদ্যালয়ের মাঠ ভরে রাখা হয়েছে ইট, বালু, খোয়াসহ বিভিন্ন ধরণের নির্মাণ সামগ্রী। প্রতিদিনই মেশিন দিয়ে এসব ইট ভাঙ্গা হচ্ছে। আর এই মেশিন দিয়ে ইট ভাঙ্গার শব্দে শিক্ষকদের পাঠদান বিঘ্ন ঘটছে। শিক্ষার্থীরা শিক্ষার্থীরা শ্রেণিকক্ষে মনোনিবেশ করতে পারছেনা। তারা করাতে পারছেনা খেলাধুলা। ফলে বিপাকে পড়েছে স্কুলের শিক্ষার্থীরা। এ নিয়ে এলাকায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সদস্য কামাল হোসেন অভিযোগ করে বলেন, ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে স্কুলের মাঠ ঠিকাদারকে ভাড়া দেয়া হয়েছে। ঠিকাদার মাঠে ইট,বালু, খোয়া সহ নির্মাণ সামগ্রী রেখেছে। দিনে ২০/৩০ গাড়ি ইট, খোয়া, বালু লোড আনলোড করা হচ্ছে। স্কুল মাঠে বিকট শব্দে ভাঙা হচ্ছে ইট। এলে লেখাপড়া ব্যাহত হচ্ছে। ধূলা বালুতে এলাকার পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। শিক্ষার্থীরা খেলাধূলা করতে পারছে না।

স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক মাহমুদ হোসেন বলেন, এ বিষয়ে আমি কিছু জানিনা। তবে শুনেছি রেজুলেশন করে ম্যানেজিং কমিটি স্কুল মাঠ লিজ দিয়েছে। এতে স্কুলের শিক্ষার পরিবেশ ব্যাহত হচ্ছে। এছাড়া বিদ্যালয়ের অন্যান্য সমস্যর কারণে শিক্ষার পরিবেশ অনেকটা্ প্রতিকূলে।

অন্যদিকে, অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় জামিনে থাকা বান্ধাবাড়ী জগৎবন্ধু পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শেখ আব্দুর রশিদ ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হান্নান মোল্লা আজ বুধবার আদালতে হাজিরা দিতে গেলে কোটালীপাড়া আমলি আদালতের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট অনুশ্রী রায় তাদের জামিন বাতিল করে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

উল্লেখ্য, বিগত গত ২৪ মার্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র অভিভাবক মো. সিরাজুল ইসলাম বাদী হয়ে গোপালগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলায় তিনি উল্লেখ করেন, গত ১৩ জুন ২০১৯ তারিখে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রশিদ ও সভাপতি হান্নান মোল্লা ম্যানেজিং কমিটির সিন্ধান্ত ছাড়া বিদ্যালয়ের জনতা ব্যাংক, কোটালীপাড়া শাখার সঞ্চয়ী হিসাব থেকে চেকের মাধ্যমে ১লক্ষ ৫০হাজার টাকা উত্তোলন করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here