কেন রোগের নাম মাংকিপক্স

 

নিউজ ডেস্কঃকরোনা আতঙ্কের মাঝেই এসে উপস্থিত মাংকিপক্স। এই ভাইরাস প্রধানত আফ্রিকার ভাইরাস। তবে সম্প্রতি কয়েকটি দেশে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। সেক্ষেত্রে এই রোগের লক্ষণ, চিকিৎসা ও প্রতিরোধ করার বার্তা দিলেন বিশিষ্ট চিকিৎসক।

মাংকিপক্স নিয়ে সমস্যার শেষ নেই। এই রোগ নিয়ে ইতিমধ্যেই তুলকালাম বেঁধে গিয়েছে উন্নত দেশগুলিতে। করোনার মাঝে এমন এক অদ্ভুত রোগের উপস্থিতি নিয়ে চিন্তায় রয়েছে বহু বিজ্ঞানীরা। এমনকী সাধারণ মানুষের মধ্যেও রয়েছে চাঞ্চল্য।

এই ভয়ঙ্কর রোগ সম্পর্কে আমাদের বিশদে জানালেন কলকাতার আমরি হাসপাতাসের বিশিষ্ট মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা: রুদ্রজিৎ পাল। তিনি এই সম্পর্কে বলেন, আসলে এই রোগটি হয় মাংকিপক্স ভাইরাস থেকে। এক্ষেত্রে ১৯৭০ সালে এই ভাইরাস প্রথম পাওয়া যায় বাঁদরের মধ্যে। তাই এই ভাইরাসের নাম হল মাংকিপক্স। আসলে এই ভাইরাস প্রধানত পাওয়া যেত আফ্রিকা মহাদেশে। কিন্তু এখন এই ভাইরাস অন্যান্য বিভিন্ন দেশেও ছড়িয়ে পড়ছে। এক্ষেত্রে ব্রিটেনেও পাওয়া গিয়েছে এই ভাইরাস। আর তারপর থেকে সব মহলেই রয়েছে চাঞ্চল্য।

ডা: পাল জানান, আমরা বেশিরভাগ মানুষই গুঁটি বসন্তের কথা ভুলে গিয়েছি। কারণ এখন আমাদের দেশে এই রোগ হয় না। তবে মাংকিপক্স কিন্তু স্মল পক্স গোষ্ঠীর ভাইরাস। তাই প্রতিটি মানুষকে অবশ্যই বিষয়টি নিয়ে সতর্ক থাকতে হবে।

​ভাইরাস ছড়ায় কীভাবে?
ডা: পাল জানালেন, এই ভাইরাস সাধারণ পক্সের মতোই ছড়ায় । এক্ষেত্রে পক্স হলে যেমন একে অপরের সংস্পর্শে এলে রোগ ছড়ায়, এক্ষেত্রেও হয় তাই। অর্থাৎ রোগ ছড়ায় ত্বক থেকে ত্বকে। কোনও আক্রান্তের ত্বকের সঙ্গে কোনও সুস্থ মানুষের ত্বকের সংস্পর্শ হলে সমস্যা দেখা যায়। তাই সতর্ক থাকতে হবে।

​কী কী লক্ষণ দেখা যেতে পারে?
ডা: পাল জানালেন, এই রোগের ক্ষেত্রে বিশেষ কিছু লক্ষণ দেখা দিতে পারে। এক্ষেত্রে উপসর্গ হয় অনেকটা স্মল পক্সের মতোই। তাই প্রতিটি মানুষকে অবশ্যই এই রোগটি নিয়ে সতর্ক হয়ে যেতে হবে।

১. Rash থাকে। বড় আকারের Rash হয়

২. মাথা ব্যথা, শরীরে ব্যথা

৩. জ্বর

মোটামুটি এই তিনটি লক্ষণই দেখা যায়। এক্ষেত্রে Rash দেখেই বলা যেতে পারে যে এটা কোন ধরনের পক্স।

​কাদের আশঙ্কা বেশ?
ডা: পালের কথায়, যতদূর জানা যাচ্ছে, প্রায় সব বয়সের মানুষেরই এই সমস্যা হতে পারে। এক্ষেত্রে আলাদা করে কোনও নির্দিষ্ট বয়স বা লিঙ্গের কথা বলা যাবে না। অনেকে এবার প্রশ্ন করছেন, চিকেন পক্স হওয়ার পরও কি এই ভাইরাস থেকে সুরক্ষা মিলবে না? না, মিলবে না। এক্ষেত্রে চিকেন পক্স হওয়ার পরও এই অসুখ দেখা দিতে পারে। তাই সতর্ক থাকতে হবে।

​চিকিৎসা কী?
ডা: পাল জানালেন, এটি ভাইরাসবাহিত রোগ। তাই নিজের থেকেই রোগ সেরে যায়। মাংকিপক্সের ক্ষেত্রেও কিন্তু তাই ঘটছে। এক্ষেত্রেও ভাইরাসের প্রভাব নির্দিষ্ট সময়ের পর কমে যায়। তাই চিকিৎসা তেমন কিছু নেই। তবে জ্বর, গায়ে ব্যথা হলে ওই প্যারাসিটামল খাওয়া যায়। এছাড়া লক্ষণ অনুযায়ী বিভিন্ন চিকিৎসা চলে। তাই চিন্তার কোনও কারণ নেই।

​প্রতিরোধ কী ভাবে?
ডা: পালের কথায়, এই রোগ এখনও ভারতে আসেনি। তাই রোগটিকে এখনই প্রতিরোধ করতে হবে। এক্ষেত্রে আপনাকে রোগ প্রতিরোধের জন্য আরও বেশি করে সচেষ্ট হতে হবে। এক্ষেত্রে কারও মধ্যে এই ধরনের লক্ষণ দেখা দিলেই চিকিৎসকের কাছে আসুন। এছাড়া রোগ নির্ণয় করে যত দ্রুত সম্ভব রোগীকে আইসোলেশনে পাঠাতে হবে। তবেই এই রোগের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া হবে সম্ভব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here