হাসপাতাল থেকে রোগীকে বের করে দিলেন চিকিৎসক

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি:চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে চিকিৎসা নিতে যাওয়া এক গুরুতর অসুস্থ রোগীকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে।

বুধবার (২৫ মে) বিকেল সাড় ৫টার দিকে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী রোগী মুন্সী মহাসীন আলী জীবননগর পৌর শহরের হাইস্কুলপাড়ার বাসিন্দা।

ঘটনার বিষয়ে জানতে ওই চিকিৎসকের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে জীবননগর উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এমআর বাবুর সঙ্গেও অসদাচরণ করেন তিনি। এ সময় ঘটনায় অভিযুক্ত চিকিৎসকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি তুলেছেন জীবননগর প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ।

ভুক্তভোগী রোগী মহাসীন আলী বলেন, বুধবার (২৫ মে) বিকেলে বুকে ব্যথা নিয়ে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে যাই। এ সময় জরুরি বিভাগে একজন নারী চিকিৎসক কর্মরত ছিলেন। বুকের ব্যথা বাড়তে থাকায় দ্রুত চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে ওই চিকিৎসককে অনুরোধ করি। কিন্তু তিনি আমার কথা না শুনে তার পাশে বসা একজন ওষুধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধির সঙ্গে আড্ডা দেন। বুকের ব্যথা নিয়ে দীর্ঘ সময় বসে থাকায় আমার শারীরিক অবস্থা খারাপ হতে শুরু করলে, আমি আমার ব্লাড প্রেসার চেক করার জন্য অনুরোধ করি। এ সময় ডাক্তার বলেন, ব্লাড প্রেসার মাপার কাজ আমার না। যিনি মাপবেন তিনি বাইরে গেছেন। তিনি এসে মাপবেন।

তিনি আরও বলেন, আমি বারবার অনুরোধ করলে তিনি আচমকা আমার ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে সেখান থেকে বের হয়ে যেতে বলেন। এ সময় আমি ওই চিকিৎসকের নাম জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, ‘নাম শুনে কি করবি? এমপি টগরকে বলবি? বলে যদি কিছু করতে পারিস কর যা। এখান থেকে বের হয়ে যা। পরে আমি হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে এসে স্থানীয় একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিই’। আমি রাষ্ট্রের একজন নাগরিক। আমার সরকারি হাসপাতাল থেকে স্বাস্থ্যসেবা পাওয়ার অধিকার রয়েছে। কিন্তু ওই চিকিৎসক আমাকে চিকিৎসা সেবা না দিয়ে হাসপাতাল থেকে বের করে দিয়েছেন। আজ বৃহস্পতিবার আমি ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কাছে লিখিত অভিযোগ দেব।

জরুরি বিভাগের চিকিৎসক রুবিনা আক্তার বলেন, ওই সময় মানসিক অবস্থা খারাপ থাকায় আমি সাংবাদিকের সঙ্গে খারাপ আচারণ করেছি। রোগী তাড়াহুড়া করায় তাকে হাসপাতালের সহকারী মেডিকেল অফিসার আসা পর্যন্ত বসতে বলেছিলাম। কিন্তু তিনি না শুনে বারবার চিকিৎসা দেওয়ার কথা বলেছেন। তাই তার সঙ্গে বাগবিতণ্ডা হয়েছে।

জীবননগর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক কাজি সামসুর রহমান চঞ্চল বলেন, হাসপাতালে আসা রোগীদের সেবা দেওয়ার জন্য যাদের দায়িত্ব রয়েছে তাদের কাছ থেকে এমন আচারণ আশা করা যায় না। সংবাদ সংগ্রহের দায়িত্বে থাকা সাংবাদিকের সঙ্গে এমন অসদাচারণ কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। এ ঘটনায় ওই চিকিৎসকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে জীবননগর প্রেসক্লাব থেকে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কাছে লিখিতভাবে অভিযোগ দেওয়া হবে।

এ বিষয়ে চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন ডা. সাজ্জাদ হাসান বলেন, ঘটনাটি দুঃখজনক। আমি অফিসের জরুরি কাজে ঢাকাতে রয়েছি। ফিরে এসে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here