পটুয়াখালীতে মানসিক ভারসম্যহীন মানুষ ও ছিন্নমূল রোজাদারদের ইফতার সামগ্রী বিতরন

 

সাঈদ ইব্রাহিম,পটুয়াখালীঃপটুয়াখালীতে মানসিক ভারসম্যহীন মানুষ ও ছিন্নমূল রোজাদারদের ইফতার সামগ্রী বিতরন করেছে তরঙ্গ সংগঠন নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।
রবিবার (২৪ এপ্রিল) বিকেলে পটুয়াখালীর দক্ষিন বঙ্গ বৃদ্ধাশ্রম, চৌরাস্তা ও পটুয়াখালী সেতুর নীচে আশ্রিত, অসহায় ছিন্নমুল মানুষের হাতে ইফতার সামগ্রী তুলে দেন এ সংগঠনের স্বেচ্ছাসেবীরা। ইফতার সামগ্রী পেয়ে খুশি এসব রোজাদার ব্যাক্তিরা।
দক্ষিনবঙ্গ বৃদ্ধাশ্রমের বাসিন্দা আব্দুল মোতালেব বলেন, সংসার থেকে বিতারিত হয়ে আমরা ১৫ জন বৃদ্ধ এখানে বসবাস করি, কেউ আমাদের খবর রাখেনা আজ এই ছেলে মেয়েরা আমাদের জন্য ইফতার নিয়ে আসছে আমরা খুব খুশি। দোয়াকরি এরা যেন আরো ভালোভাবে কাজ করতে পারে।
সংগঠনের পটুয়াখালী জেলার সভাপতি জোবায়ারা রিয়া ক্রাইম ফোকাসকে বলেন, আমরা বন্ধুরা নিজেদের হাত খরচের টাকা বাচিয়ে এই সংগঠনের মাধ্যমে মানসিক ভারসম্যহীন মানুষদের খাবার দেই, তাদের চিকিৎসার ব্যাবস্থা করে থাকি। এই রোজার শুরু থেকে আমরা প্রতিদিন ৫০ জন ছিন্নমূল মানুষকে ইফতার করাচ্ছি।
সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেদওয়ান ইসলাম রুদ্র বলেন, তরঙ্গ সংগঠন একটি স্বেচ্ছাসেবী মানবিক সংগঠন । আজ এ সংগঠনের দুই বছর পূর্ণ হলো। আমরা করোনাকালীন সময়ের শুরু থেকে অবহেলিত মানসিক ভারসাম্যহীন(ভবঘুরে) মানুষের জীবনমান উন্নয়নে কাজ করে আসছি। বরিশাল সিটি করপোরেশন থেকে প্রথম আমাদের কার্যক্রম শুরু হয় যা এখন ১২টি জেলায় পরিচালিত হচ্ছে।
বর্তমানে বরিশাল ও পটুয়াখালী জেলায় প্রতিনিয়ত একবেলা করে অবহেলিত মানসিক ভারসাম্যহীন(ভবঘুরে) মানুষের মাঝে খাবার বিতরন চলছে।
পটুয়াখালীতে ও বরিশালে এর পাশাপাশি ১ম রমজান থেকেই ছিন্নমূল রোজাদারদের মাঝে ইফতার বিতরন চলছে। বাকি ১০টি জেলায় সপ্তাহে একদিন (শুক্রবার) আমরা অবহেলিত মানসিক ভারসাম্যহীন(ভবঘুরে) মানুষের জন্য এক বেলা ভালো খাবার এর ব্যবস্থা করে আসছি। যার পুরো অর্থায়নে ভলান্টিয়ার্সরাই, আমাদের সাথে কোনো দাতা সংস্থা এখনো যুক্ত হয়নি।
সমাজের বৃত্তবানরা এগিয়ে এলে এ কাজ আরো প্রসারিত করতে পারবো।
তরঙ্গ সংগঠনের আরো যারা উপস্থিত ছিলেন,
বায়েজীদ চৌধুরী, সাধারন সম্পাদক কেন্দ্রীয় পরিচালনা পরিষদ, মৃদুল চন্দ্রশীল, সাধারন সম্পাদক পটুয়াখালী জেলা শাখা, হুমায়রা জান্নাত, অর্থ সম্পাদক, পটুয়াখালী জেলাশাখা, বনি আমিন রনি, সহ সভাপতি, পটুয়াখালী জেলা শাখা ও আরো অনেকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here