ডায়রিয়ার প্রকোপে বাড়ছে হাসপাতালে ভিড়

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:মৌলভীবাজারে প্রতিদিন বাড়ছে ডায়রিয়া আক্রান্তের সংখ্যা। ডায়রিয়ায় প্রকোপে শিশুসহ সব বয়সীদের ভিড় বাড়ছে হাসপাতালে। জেলার ৭ উপজেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় ডায়রিয়া রোগী বেড়েছে ৩৩ জন।

সরেজমিন হাসপাতালে গেলে চিকিৎসকরা জানান,  হঠাৎ করে গরম পড়ায় শিশুসহ সব বয়সিরা নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন। গরমে পানির স্তর নিচে নামা, নদী নালার দূষিত পানি পান করা সহ নানাবিধ সমস্যার কারণে ডায়রিয়ার প্রকোপ বাড়ছে। এই সময়ে পানি ফুটিয়ে খাওয়ানো, স্যালাইন অথবা বেশি করে তরল জাতীয় খাবার খাওয়ানো এবং সহজে হজম হয় সেই খাবারই খাওয়ানো উচিত। তাহলে ডায়রিয়ার প্রকোপ কমবে। এছাড়াও শিশুদের খাওয়ার আগে অভিভাবকদের হাত পরিষ্কার রাখার প্রয়োজনীয়তার কথা জানানো হয়।

সোমবার জেলা সিভিল সার্জন অফিসের দৈনিক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় মৌলভীবাজার জেলায় ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছেন ৩৩  জন। গতকাল আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হন ৪০ জন ।

যার মধ্যে ১৮ এপ্রিল মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি হয় ১১ জন, রাজনগরে ২ জন,  কুলাউড়ায় ৩ জন,  বড়লেখায় ৪ জন, কমলগঞ্জে ৫ জন, শ্রীমঙ্গলে ৫ জন ও জুড়ি উপজেলায় ৩ জন।

জানা গেছে, গত ১৩ এপ্রিল থেকে ১৮ এপ্রিল পর্যন্ত ১৯৫ জন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া গত সাড়ে তিন মাসে জেলায় ডায়রিয়ায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৪ হাজার ৯৬৮ জন। সুস্থ হয়েছেন ৪ হাজার ৮৯৩ জন।

রাজনগর উপজেলা থেকে একমাত্র শিশুপুত্র নিয়ে হাসপাতালে এসেছেন সম্পা দেব ও দূর্গা দেব দম্পতি।  তারা উদ্বিগ্ন কণ্ঠে বলেন, তিন দিন থেকে পাতলা পায়খানা হতে থাকে। স্থানীয় ডাক্তার দেখিয়েছি, কোনো কাজ হয়নি। পরে হাসপাতাল আসি এখন বাচ্চাটি ভালো।

শ্রীমঙ্গল থেকে আসা রিতা বেগম বলেন, ডায়রিয়া হওয়ার পর ফার্মেসি থেকে কিনে ওষুধ খাইয়েছি। এরপর অবিরত বমি হতে থাকলে হাসপাতালে আসি। এখন বাচ্চা ভালো আছে।

কমলগঞ্জের মৃত্তিঙ্গা চা বাগান থেকে আসা অনিল গড় বলেন, আমার ছয় বছরের শিশু চার দিন আগে হঠাৎ বমি শুরু করে। এরপর দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে আসি। এসে জানলাম ডায়রিয়া। এখন চিকিৎসা চলছে।

মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের ডায়রিয়া ওয়ার্ডের সিনিয়র স্টাফ নার্স কল্পনা  দত্ত বলেন, হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ও শিশু বিশেষজ্ঞরা ডায়রিয়া ওয়ার্ডে এসে পরিদর্শন করে গেছেন। গরমের কারণে পুরুষ, নারী ও শিশুরা আক্রান্ত হচ্ছেন। আমরা সব ধরনের সেবা তাদের দিচ্ছি।

হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ড. কে এম হুমায়ুন কবির বলেন, সারাদেশের ন্যায় মৌলভীবাজারে ডায়রিয়া প্রকোপ বৃদ্ধি পেয়েছে। কোনো নিয়ম নীতি না মেনে বাইরের খাবার খাওয়া ও দূষিত পানি পানের কারণে ডায়রিয়া বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ বিষয় নিয়ে সিভিল সার্জনের সঙ্গে পরিস্থিতি মোকাবিলা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আমাদের পর্যাপ্ত ওষুধ, সেলাইন মজুদ রয়েছে। আমরা সব ধরনের পরিস্থিতি মোকাবিলায় সক্ষম।

জেলা সিভিল সার্জন ডা. চৌধুরী জালাল উদ্দিন মুর্শেদ বলেন, পরিস্থিতি এখন পর্যন্ত স্বাভাবিক আছে। অতিরিক্ত গরমের ফলে পানির স্তর নিচে নেমে যায় ফলে মানুষজন পুকুর নদী নালার দূষিত পানি পান করায় এর প্রকোপ বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই সময় সব ধরনের পানি ফুটি পান করা উচিত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here