হত্যার পর খাটের নিচে লুকিয়ে রাখেন শিশুর লাশ, ঝড়ের সুযোগে ফেলেন বাঁশঝাড়ে

সিলেট প্রতিনিধি:সিলেটে হাওলাদারপাড়া থেকে এক শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তাকে পারিবারিক বিরোধের জেরে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় এক নারীকে আটক করেছে পুলিশ।

বাড়ির পাশের বাঁশঝাড় থেকে সোমবার সকালে শিশু রাহুল দাসের লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে সন্দেহ হলে প্রতিবেশী পুর্বতী দাসকে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। মৃত শিশুটির বাবার নাম রুবেল দাস।

জালালাবাদ থানার ওসি নাজমুল হুদা খান জানান, আটককৃত নারী জিজ্ঞাসাবাদে রাহুলকে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন।

ওসি কৃসৃন, পুর্বতীর সঙ্গে রুবেলের পরিবারের বিরোধ ছিল। এরই জেরে দুইদিন আগে রাহুলকে নিজ ঘরে ডেকে নিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করেন পুর্বতী। এরপর লাশ নিজের ঘরেই রেখেছিলেন। রোববার রাতে ঝড় শুরু হলে শিশুটির লাশ বাড়ির পাশের বাঁশঝাড়ে ফেলে দেন। কী নিয়ে বিরোধ ছিল এ ব্যাপারে পুর্বতী কিছু বলেননি। কেবল বলেছেন- রাগ ছিল, তাই মেরে ফেলেছেন।

রাহুলের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার দুপুর থেকে নিখোঁজ ছিল রাহুল। এ ব্যাপারে শনিবার জালালাবাদ থানায় জিডি করেন রুবেল দাস।

সোমবার সকালে ঘরের প্রায় ২০ গজ দূরে একটি বাঁশঝাড়ে রাহুলের লাশ দেখে পুলিশের খবর দেন প্রতিবেশীরা। এরপর পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here