বাবার বাড়ি যাওয়া হলো না, শ্বশুর বাড়িতে লাশ হলেন গৃহবধূ আঁখি

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি:ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলার ব্রক্ষ্মপুর গ্রামে আঁখি আকতার নামে এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে।

নিহত আঁখি ঐ গ্রামের রফিজুল ইসলামের ছেলে রাজু হোসেনের স্ত্রী এবং পীরগঞ্জ উপজেলার দোস্তমপুর গ্রামের একরামুল হকের মেয়ে। এ নিয়ে নিহত আঁখির বাবা রাতেই রাণীশংকৈল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন।

জানা যায়, দুই বছর আগে রাজু হোসেনের সঙ্গে আঁখি আকতারের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই আঁখি শ্বশুরবাড়ির লোকজনের নির্যাতনের শিকার হয়। রোববার সকালে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে আঁখিকে তার স্বামী ও পরিবারের লোকেরা মারপিট করে। এতে আঁখি বাড়ি থেকে বেরিয়ে বাবার বাড়ি যাওয়ার সময় শ্বশুরবাড়ির লোকেরা তাকে বাড়িতে ফিরিয়ে আনে। খবর পেয়ে বিকেলে আঁখির বাবা ও আত্মীয়রা জামাইয়ের বাড়ি গিয়ে ঘরে আঁখিকে মৃত দেখতে পান। সন্ধ্যার পর পুলিশ আঁখির লাশ উদ্ধার করে।

পুলিশের এসআই বদিউজ্জামান জানান, লাশের গলায় কালো দাগ দেখে গৃহবধূর লাশ ঝুলন্ত ছিল বলে মনে হয়।

ওসি এসএম জাহিদ ইকবাল বলেন, সুরতহাল শেষে লাশ থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। সোমবার সকালে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

আঁখির বাবা বলেন, ‘আমার মেয়েকে মেরে ফেলে গলায় ওড়না দিয়ে ঝুলিয়ে ওরা এখন আত্মহত্যার কথা বলতেছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here