স্ত্রীকে হত্যার পর হাসপাতালে লাশ রেখে পালাল পাষণ্ড স্বামী

মাদারীপুর প্রতিনিধি:মাদারীপুরের শিবচরে স্ত্রীকে ধারাল অস্ত্রের আঘাতে হত্যার পর হাসপাতালে লাশ রেখে পালিয়েছে স্বামী ও তার পরিবারের সদস্যরা।

সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত স্বামী শিবচর উপজেলার শিবচর ইউপির চরশ্যামাইল গ্রামের খালেক তালুকদারের ছেলে অটোচালক রাজ্জাক তালুকদার।

মঙ্গলবার সকালে শিবচর থানার এসআই সিদ্ধার্থ কুমার এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

জানা যায়, রাজ্জাক তালুকদার ও তার দ্বিতীয় স্ত্রী আয়শা আক্তারের সঙ্গে পারিবারিক কলহ নিয়ে প্রায়ই ঝগড়া হতো। সোমবার রাতে নিজবাড়িতে স্বামী রাজ্জাক তালুকদারের সঙ্গে স্ত্রী আয়শার মোবাইলে কথা বলা ও পারিবারিক বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে স্বামী রাজ্জাক তালুকদার ধারাল অস্ত্র দিয়ে স্ত্রী আয়শার পেটে ও নাকে আঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলেই আয়শার মৃত্যু হয়। পরে ঘরে চেচাঁমেচির শব্দ পেয়ে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে আয়শাকে নিথর অবস্থায় ঘরের মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখে হাসপাতালে নেয়ার কথা বললে রাজ্জাক ও তার পরিবারের সদস্যরা আয়শাকে নিজের অটোরিকশায় করে শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

এদিকে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আয়শাকে রেখে স্বামী রাজ্জাক ও তার পরিবারের সদস্যরা পালিয়ে যায়। এ সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে হাসপাতাল থেকে নিহত আয়শার লাশ থানা হেফাজতে নিয়েছে। নিহত আয়শা বরিশালের আ. মান্নানের মেয়ে। আয়শার শাওন নামের একটি ছেলে ও সিনথিয়া নামের একটি মেয়ে রয়েছে।

শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. তরিকুল ইসলাম বলেন, হাসপাতালে আনার আগেই আয়শার মৃত্যু হয়েছে। তার পেটে ও নাকের ওপরে ধারাল অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। অধিক রক্তক্ষরণেই তার মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

শিবচর থানার এসআই সিদ্ধার্থ কুমার বলেন, নিহত আয়শার শরীরে দুটি আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। অভিযুক্ত স্বামীকে ধরতে পুলিশের একাধিক টিম কাজ করছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here