পুলিশ পেটানো ঘটনায় বিএনপি নেতা কারাগারে

নাটোর প্রতিনিধি:পুলিশর ওপর হামলার ঘটনায় করা মামলায় নাটোরের বড়াইগ্রামে উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক সামসুল আলম রনিকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

রোববার (২৭ মার্চ) দুপুরে সামসুল আলম রনি সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ শরীফ উদ্দিনের আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন জানান। পরে শুনানি শেষে আদালতের বিচারক জামিন না মঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের ১৭ জানুয়ারি বিএনপি নেতা-কর্মীরা বড়াইগ্রামের কয়েন বাজার এলাকায় বিএনপির শতাধিক নেতা কর্মী দলীয় কর্মসুচির অংশ হিসেবে মিছিল শেষে মহাসড়ক অবরোধ করে সভা করছিলেন। এ সময় মহাড়কের দু’পাড়ে বিপুল সংখ্যক যানবাহন আটকা পড়ে। এ সংবাদ পেয়ে বড়াইগ্রাম থানার তৎকালীন এসআই সত্যব্রত সরকার সঙ্গীয় ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে হাজির হন এবং যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি না করে সভা না করার অনুরোধ করেন। এ সময় রনিসহ কয়েকজন তাদের নিষেধ অমান্য করে সভা চালাতে থাকে এবং এসআই সত্যব্রতর ওপর চড়াও হয়ে কিল-ঘুষি মারতে শুরু করে। পুলিশ তাদের বাধা দিলে বিএনপির নেতা-কর্মীরা ইট পাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ ঘটনায় এসআই সত্যব্রত বাদী হয়ে সামসুল আলম রনিসহ বিএনপির স্থানীয় ৩৭ নেতা-কর্মীর না উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও শতাধিক জনকে আসামি করে সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে বড়াইগ্রাম থানায় একটি মামলা রুজু করেন।

রনির আইনজীবী আব্দুল কাদের বলেন, এ মামলায় সামসুল আলম রনিসহ ৫ জন হাইকোর্টে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করলে তাদের জামিন মঞ্জুর করেন। পরে ৬ সপ্তাহের মধ্যে নাটোরের জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেন। ওই নির্দেশের পরিপ্রেক্ষিতে গত ২২ মার্চ রনি ব্যতীত ৪ জন সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করলে তাদের জামিন মঞ্জুর করা হয়।

তিনি আরও বলেন, রোববার (২৭ মার্চ) সামসুল আলম রনি একই মামলায় আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করলে বিচারক তার জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here