তজুমদ্দিনে কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া ভেঙে ফেলা হয়েছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের টয়লেট

লালমোহন  প্রতিনিধিঃভোলার তজুমদ্দিনে কর্তৃপক্ষের কোন প্রকার অনুমতি ছাড়া বাচ্ছাদের খেলনা বসানোর নামে চাঁদপুর মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নিজ ক্ষমতা বলে ভেঙে ফেলে বিদ্যালয়ের টয়লেট। তার এধরনের আচরনে ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও উপজেলার সচেতন মহলের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

সুত্রে জানা যায়, উপজেলার সদরে ২৮নং চাঁদপুর মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিতালী দত্ত কর্তৃপক্ষের কোন প্রকার অনুমতি না নিয়েই ভেঙে ফেলছেন স্কুলের টয়লেট। বিদ্যায়লটিতে বর্তমানে প্রায় সাড়ে ৪শত শিক্ষার্থী অধ্যয়নরত রয়েছে। এই টয়লেটটি ভেঙে ফেলায় শিক্ষার্থীর তুলানায় স্কুলটিতে টয়লেট অপ্রতুল। কর্তৃপক্ষ টয়লেটটি পরিত্যাক্ত ঘোষনার আগেই প্রধান শিক্ষক সেটিকে পরিত্যক্ত ঘোষনা করে ভেঙে ফেলেন বাচ্চাদের খেলনা বসানোর নামে। যে কারণে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে শিক্ষার্থীসহ সচেতন মহলের মাঝে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই বিদ্যালয়ের অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা জানান, আমাদের বিদ্যালয়ের আরো অনেক জায়গা রয়েছে। মেডাম যদি খেলনা বসান সেখানেও বসাতে পারতেন। যেহেতু শিক্ষার্থীর তুলনায় স্কুলটিতে টয়লেট অপ্রতুল।
জানতে চাইলে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষিকা মিতালী দত্ত বলেন, যে টয়লেটটি ভাঙা হচ্ছে সেটি বাতিল টয়লেট। এখানে বাচ্চাদের খেলনা বসানো হবে সে কারণে টয়লেটটি ভাঙা হচ্ছে। টয়লেট ভাঙার বিষয়টি উপজেলা শিক্ষা অফিসার জানে কিনা এমন প্রশ্নে তিনি সরাসরি বলেন, না শিক্ষা অফিসারকে জানানো হয়নি। স্কুলের সভাপতি বিষয়টি শিক্ষা অফিসারকে জানিয়েছেন কিনা জানিনা।
উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. নুর ইসলাম বলেন, টয়লেট ভাঙার বিষয়টি আমাকে অবহিত করা হয়েছে। তবে উপজেলা শিক্ষা কমিটির মিটিংয়ে এটি আলোচনা কিংবা রেজুলেশন হয়েছে কিনা আমার জানা নেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here