মাঝি-মাল্লার বৈঠার ছলাৎ ছলাৎ শব্দে ছন্দ মাতিয়ে তোলে যমুনার ঢেউ

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি:আবহমান বাংলার প্রাচীন ঐতিহ্য নৌকাবাইচ। নদীমাতৃক এ দেশের গ্রাামীণ লোক সাংস্কৃতির ও ঐতিহ্যকে বুকে ধারণ করে দেশের বিভিন্ন বিল-হাওর বাওড় ও নদ-নদীতে আয়োজন করা হয় নৌকাবাইচ।

সেই ঐতিহ্যকে ধারণ করেই বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার গোবিন্দাসী এলাকায় যমুনা নদীতে দুই দিনব্যাপী নৌকা বাইচের আয়োজন করা হয়েছে।

শুক্রবার বিকেলে টাঙ্গাইল-২ (গোপালপুর-ভূঞাপুর) আসনের এমপি তানভীর হাসান ছোট মনিরের উদ্যোগে এ নৌকা বাইচের আয়োজন করা হয়। শনিবার সমাপনী দিনে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন এমপি তানভীর হাসান ছোট মনির।

প্রতিযোগিতায় নারায়ণগঞ্জ, সিরাজগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, জামালপুর, শেরপুর, নেত্রকোনা, পাবনা ও টাঙ্গাইলে বিভিন্ন উপজেলা থেকে আল্লাহ ভরসা, মায়ের দোয়া, সোনার তরী, ফুলের তরী, আদর্শ তরী, ময়ূর পঙ্খী, পঙ্খীরাজ ও জলপরীসহ বাহারী নাম ও বিভিন্ন রঙের ডিঙি, কুশা, সিপাই, খেলনা, অলংগাএবং ছিপনৌকাসহ কয়েক ধরনের প্রায় শতাধিক নৌকা অংশগ্রহন করে। ছোট, বড় ও মাঝারি নৌকা পৃথক কয়েকটি রাউন্ডে এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

নৌকাবাইচ দেখতে সকাল থেকেই হাজার হাজার দর্শনার্থীদের ঢল নামে যমুনা তীরবর্তী গোবিন্দাসী, কুকাদাইর ও খানুরবাড়ি এলাকায়।

নৌকাবাইচ দেখতে সকাল থেকেই হাজার হাজার দর্শনার্থীদের ঢল নামে যমুনা তীরবর্তী গোবিন্দাসী, কুকাদাইর ও খানুরবাড়ি এলাকায়।

প্রতিযোগিতার চুড়ান্ত রাউন্ডে টাঙ্গাইলের ভূয়াপুরে নিকড়াইলের ‘যমুনার তরী’ নৌকাটি চ্যাম্পিয়ন হয়। রানার্সআপ হয় একই উপজেলার ‘একতা’ নৌকা। পরে অতিথিবৃন্দ বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন। এ সময় চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপসহ অংশগ্রহণকারী প্রত্যেকটি নৌকাকেই আকর্ষনীয় পুরস্কার দেওয়া হয়।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি গাজী ইকরাম উদ্দিন তারা মৃধার সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন ভূঞাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুদুল হক মাসুদ। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা বাস মিনিবাস সমিতির মহাসচিব গোলাম কিবরিয়া বড় মনি, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক তাহেরুল ইসলাম তোতা প্রমুখ।

নৌকাবাইচ দেখতে সকাল থেকেই হাজার হাজার দর্শনার্থীদের ঢল নামে যমুনা তীরবর্তী গোবিন্দাসী, কুকাদাইর ও খানুরবাড়ি এলাকায়।

নৌকাবাইচ দেখতে সকাল থেকেই হাজার হাজার দর্শনার্থীদের ঢল নামে যমুনা তীরবর্তী গোবিন্দাসী, কুকাদাইর ও খানুরবাড়ি এলাকায়।

শনিবার ছিল বাইচের শেষ দিন। নৌকাবাইচ দেখতে সকাল থেকেই হাজার হাজার দর্শনার্থীদের ঢল নামে যমুনা তীরবর্তী গোবিন্দাসী, কুকাদাইর ও খানুরবাড়ি এলাকায়। আশেপাশ ও দূর দূরান্ত থেকে এলাকা থেকে নারী পুরুষসহ সব বয়সী হাজার হাজার মানুষ নৌকা বাইচ দেখতে ভিড় করেন। বিভিন্ন জেলা থেকে সুসজ্জিত নৌকা নিয়ে অংশ নেন নৌকা প্রতিযোগীরা। ছোট-বড় শত শত নৌকা ভাড়া করে বন্ধু বান্ধব ও স্বজনদের নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় অবস্থান নেন দর্শনার্থীরা। পুরুষের পাশাপাশি নারীদের উপস্থিতিও ছিলো চোখে পড়ার মতো। থৈথৈ জলে বাদ্যযন্ত্রের তালে তালে মাঝি-মাল্লার বৈঠার ছলাৎ ছলাৎ শব্দে ছন্দ মাতিয়ে তোলে যমুনার ঢেউকে। এ যেন এক নির্মল আনন্দ। নদীর পাড়ে দাঁড়িয়ে নৌকা নিয়ে হাজার হাজার নারী পুরুষ এ আনন্দ উপভোগ করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here