নারীর সঙ্গে সিরাজগঞ্জশপের পরিচালকের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবি ভাইরাল

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ‘সিরাজগঞ্জশপ.কম’র পরিচালক মাসুদ পারভেজের সঙ্গে নারীর আপত্তিকর ছবি ছড়িয়ে পড়েছে ফেসবুকে। অন্তরঙ্গ মুহূর্তের একাধিক ছবি প্রকাশ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সেটি ভাইরাল হয়েছে। এ নিয়ে চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনা।

কয়েকদিন ধরে ওই নারীর সঙ্গে আপত্তিকর কিছু ছবি ফেসবুকে ঘুরছে। এমন অপকর্মে মাসুদ পারভেজের বিরুদ্ধে অতিদ্রুত ব্যবস্থা নিতে আহ্বান জানিয়েছেন বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ।

শনিবার রাতে ফেসবুকে ‘সিরাজগঞ্জের খবর’ নামে একটি পেজে জনসাধারণের অর্থলোপাটে অভিযুক্ত ই-কমার্সের পরিচালক মাসুদ পারভেজের সঙ্গে এক নারীর অন্তরঙ্গ মুহূর্তের একাধিক ছবি প্রকাশিত হয়। সঙ্গে সঙ্গে পোস্টটি ভাইরাল হয়। রোববার সকাল থেকেই বিভিন্ন ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্ট ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গণমাধ্যমকর্মীদের বিভিন্ন গ্রুপে ছবিগুলো প্রকাশ হলে তীব্র সমালোচনার ঝড় ওঠে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত ছবিগুলোর কমেন্টস গ্রুপে অনেকে বিভিন্ন মন্তব্য করেন।

ছবি ভাইরালের বিষয়ে সিরাজগঞ্জ শপের পরিচালক নিজের ফেসবুক পেজে বলেন, তিন মাস আগে আমি সিরাজগঞ্জ শপ ছেড়ে আসি। আর আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য আমার ছবি নানাভাবে ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। ব্যক্তিজীবনে অধিকাংশ মানুষেরই ভুলত্রুটি থাকে। আমারও আছে।

জানা গেছে, জেলা প্রশাসনের লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং প্রজেক্টে প্রশিক্ষণ নিয়ে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান সিরাজগঞ্জশপ.কম গড়ে তোলেন সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার বহুলী ইউনিয়নের বেড়াবাড়ি গ্রামের জুয়েল রানা। প্রতিষ্ঠানে নিজে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও মাসুদ পারভেজকে পরিচালক করেন। শহরের এমএ মতিন সড়ক ও কাঠেরপুল এলাকায় জাঁকজমকপূর্ণ দুটি অফিস নেন। এরপর জনবল নিয়োগ দিয়ে চটকদার বিজ্ঞাপন ও বিশাল ছাড়ের অফারের মাধ্যমে শুরু করেন বিনিয়োগ এবং অর্ডারের অগ্রিম অর্থ আদায়। অল্প সময়ে কোটিপতি বনে বিলাসী জীবনযাপন শুরু করেন দুজনই। প্রতিষ্ঠানটি গ্রাহকদের পণ্য দেওয়াতো দূরের কথা বরং ৪৭ কোটি ৪৩ লাখ টাকারও বেশি অর্থ আত্মসাৎ করে গা-ঢাকা দিয়েছেন তারা।

এরই মধ্যে সিরাজগঞ্জ শহরের বাহিরগোলা ও এমএ মতিন সড়কে সিরাজগঞ্জ শপ ডটকমের প্রধান এবং আঞ্চলিক অফিস দুটি দুই সপ্তাহ ধরে তালাবদ্ধ। এ ঘটনায় মোবাইল ব্যাংকিং সেবা প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে এরই মধ্যে বনানী থানায় একটি মামলা করা হয়। মামলা দেওয়ার পর থেকেই তিনি আত্মগোপনে রয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here