২১আগষ্ট হামলা পরিকল্পনাকারীদের ফাঁসি কার্যকরের দাবী বাবুগঞ্জ আ’লীগের

 

আরিফ হোসেন,বাবুগঞ্জ: একুশে আগষ্টের গ্রেনেড হামলা ছিলো পূর্ব পরিকল্পিত। ২০০৪ সালে ওই হামলা করা হয়েছিলো বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দিশ্যে ও আওয়ামীলীগ সংগঠনটি নেতৃত্ব শুন্য কারার জন্য। গ্রেনেড হামলার মূল পরিকল্পনাকরি বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক জিয়াসহ সহ সকল জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি করে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা।

শুক্রবার (২১ আগস্ট) সকাল ১০ টায় দলীয় কার্যালয় থেকে উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদে আয়োজিত আলোচনা সভায় এ দাবী তোলেন বক্তারা।

বাবুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস এম খালেদ হোসেন স্বপনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মৃধা মো. আক্তার উজ জামান মিলনের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আ. মতিন রাঢ়ী, অধ্যক্ষ দেলোয়ার হোসেন, উপজেলা আ.লীগের দফতর সম্পাদক বাবু পরিতোষ চন্দ্র পাল, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম পিন্টু, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা আ. রহমান,বরিশাল জেলা পরিষদের সদস্য ও যুবলীগ নেতা মো. মাইনুল হোসেন পারভেজ মৃধা, ডেপুটি কমান্ডার আ. করিম হাওলাদার, বীর মুক্তিযোদ্ধা দেলোয়ার হোসেন রাঢ়ী, বাবুগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রিফাত জাহান তাপসী, জাহাঙ্গীর নগর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান ও আ.লীগ নেতা তারিকুল ইসলাম তারেক, কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহিদুর রহমান শিকদার, শ্রমীকলীগ সাধারণ সম্পাদক তাওহীদ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক এম আর বাদল বিশ্বাস, চাঁদপাশা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ইসমাইল হোসেন, সম্পাদক জুয়েল মোল্লা, মাধবপাশা ইউপি আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক হাফিজ আহমেদ স্বপন, রহমতপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক মাষ্টার মো. শহিদুল ইসলাম।কেদারপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নুরে আলম বেপারি, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মাহাবুব আলম মাসুম মৃধা, দেহেরগতি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি মাঝী মোঃ মাসুম রেজা, সাধারণ সম্পাদক কাজী জসিম উদ্দিন শুভ, মাধবপাশা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. জয়নাল আবেদীন, জাহাঙ্গীর নগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. ইউসুফ খান, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মো. কামাল হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মো. গোলাম কিবরিয়া, ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. সিরাজুল মজিদ মামুন মৃধা, সম্পাদক কাজী আরিফুর রহমান অপু, ছাত্রলীগ নেতা মো. ইয়াসির আরাফাত সোহেল, মো. ওবায়দুল হক জুয়েল, প্রসেনজিৎ দাস অপু, যুবলীগ নেতা মহসিন প্যাদা, ছাত্র লীগ নেতা রাজু খন্দকার, সৈয়দ জহিরুল হাসান মুরাদ, আলহাজ্ব মো. সোলাইমান হোসেন, অতনু অধিকারী, তারিকুল ইসলাম নাইম, সোলাইমানসহ উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ আ.লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here