স্কুলশিক্ষককে ডেকে নিয়ে দুই নারীর সঙ্গে অন্তরঙ্গ ভিডিও, ৫ লাখ টাকা দাবি

রংপুর প্রতিনিধি:ভালো চিকিৎসক দেখানোর কথা বলে এক স্কুলশিক্ষককে ডেকে নিয়ে জোর করে দুই নারীর সঙ্গে অন্তরঙ্গ ছবি ধারণ করে ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে ৫ লাখ টাকা দাবি করায় স্বামী স্ত্রীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতাররা হলেন শাহিনা বেগম ওরফে শীলা আক্তার ইসা ও তার স্বামী মোহাম্মদ মমিন।

শুক্রবার বিকেলে রংপুর নগরীর সেন্ট্রাল রোড়ে ডিবি কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানান, রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি) কাজী মুত্তাকী ইবনু মিনান।

সংবাদ সন্মেলনে বলা হয়, গত ১১ আগস্ট দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার কালিকাপুর খামারপাড়া এলাকার মোহাম্মদ মমিন ও রংপুর নগরীর ধাপ কটকিপাড়া এলাকার শাহিনা বেগম ওরফে শীলা আক্তার ইসা ভালো চিকিৎসক দেখার কথা বলে ওই স্কুল শিক্ষককে রংপুরে ডেকে নিয়ে আসেন। চিকিৎসক আসতে দেরী হবে জানিয়ে শাহিনা বেগম ইসা স্কুল শিক্ষক ফারুক হোসেনকে তার ভাড়া বাড়ি রংপুর নগরীর ধাপ কটকিপাড়ায় নিয়ে যান। বাসায় যাওয়ার ১০-১৫ মিনিট পর মোহাম্মদ মমিনসহ আরো ২ ব্যক্তি ঘরের ভেতরে প্রবেশ করে জোরপূর্বক দুই নারীর সঙ্গে বসিয়ে অশ্লিল ছবি ধারণ করে। ছবি ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে ৫ লাখ টাকা দাবি করেন। পরে বিকাশের মাধ্যমে ওই প্রতারক চক্রকে ৩৫ হাজার টাকা দিয়ে মুক্তি পান।

এ ঘটনায় স্কুলশিক্ষক ফারুক হোসেন রংপুর মহানগর ডিবি পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ করলে পুলিশ রাতে ধাপ কটকিপাড়া এলাকার শীলার ভাড়া বাড়িতে অভিযান চালিয়ে শীলা আক্তার ও তার স্বামী মমিনকে গ্রেফতার করে।

সংবাদ সম্মেলনে উপ-পুলিশ কমিশনার জানান, তারা দীর্ঘ দিন ধরে এভাবে ফাঁদ পেতে অশ্লিল ছবি ধারণ করে মানুষের কাজ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা। পরে তাদের আদালতের মাধ্যমে রংপুর কেন্দ্রীয় কারাগারে প্রেরণ করা হয়

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here