দুহাত না থাকলেও সন্তানের জন্য অফুরন্ত ভালোবাসা এই নারীর

নিউজ ডেস্কঃমা এমন একজন মানুষ যাকে দিনে ২৪ ঘণ্টা ও সপ্তাহের ৭ দিনই কাজ করতে হয়। একজন মায়ের কোনো ছুটি নেই, তারকা থেকে শুরু করে রাস্তার ভিক্ষুক সকল মা-ই তার সন্তানের জন্য তার জীবন উৎসর্গ করে দেন। যতটা কঠিন একজন নারী হওয়া তার থেকেও বেশী কঠিন মা হওয়া।

সন্তানকে ৯ মাস গর্ভে ধারণ করেন মা, আর হৃদয়ে ধারণ করেন আমৃত্যু। একজন মায়ের সংগ্রামের কথা বলে শেষ করা যাবে না। তেমনি এক সংগ্রামী মা সারাহ তালবী। তবে তার জীবনটা ঠিক অন্য আর ৫টা সাধারণ নারীর মতো নয়। ৩৮ বছর বয়সী বেলজিয়ান এই নারী জন্মগ্রহণ করেছিলেন দুই হাত ছাড়া। তবে শারীরিক দিক দিয়ে তিনি অপারগ হলেও যোগ্যতার দিক দিয়ে তিনি কোনো অংশেই অন্যদের থেকে কম না আর সেটি তিনি প্রমাণ করে যাচ্ছেন প্রতিনিয়ত।

শারীরিক বিকলাঙ্গ সারাহ পা দিয়েই দৈনন্দিন কাজের পাশাপাশি করেন শিল্পচর্চাও। পায়ের আঙুল দিয়েই আচড় তোলেন রং তুলির, মানসিক কল্পনা আর সৃষ্টিশীলতায় ভরিয়ে তোলেন ক্যানভাস। পড়াশোনা করেছেন শিল্পকলার উপর। পেশায় একজন পেশাগত ফুট পেইনটিং শিল্পী তিনি।

কিন্তু এত কিছুর পরও কোথাও যেন তৃপ্তি পাচ্ছিলেন না সারাহ। মা হতে চাইতেন তিনি। জানতেন তার জন্য কাজটা মোটেই সহজ হবে না তারপরও তিনি পুরো পৃথিবীকে প্রমাণ করতে চেয়েছিলেন যে তার হাত না থাকলেও তিনি পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ মা হতে পারবেন। তিনি তার সন্তানকে কত ভালোবাসেন তা প্রমাণ করতে তার হাতের প্রয়োজন নেই।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সারাহ তার দৈনন্দিন জীবনের বিভিন্ন মুহূর্তের পাশাপাশি তার কন্যা সন্তানের সাথে দুষ্টু মিষ্টি নানা মুহূর্তের ছবি, ভিডিও তুলে ধরেন। যার দরুণ ভক্তদের মাঝে তার জনপ্রিয়তাও তুমুল।

নিজের জীবনের খুঁটিনাটি সব ভক্তদের জন্য তুলে ধরলেও স্বামী এবং বাসস্থানের বিষয়ে কিছুটা লুকোচুরি এখনও রেখে দিয়েছেন সারাহ। তবে তিনি যে বিবাহিত এবং তার স্বামী তাকে যথেষ্ট সহযোগিতা এবং সাহায্য করেন সে বিষয়েও নিশ্চিত করেছেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here