হর্ন বাজানো নিয়ে সংঘর্ষ, পুরুষশূন্য ২ গ্রাম

কুমিল্লা প্রতিনিধি:কুমিল্লার হোমনায় সিএনজি অটোরিকশা চালকের হর্ন বাজানোকে কেন্দ্র করে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষের ঘটনায় দুটি মামলা হয়েছে। এতে ৫৫ জনের নামে এবং অজ্ঞাত আরো ৩০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। রোববার হোমনা থানায় এ দুটি মামলা হয়। কামরুল হাসান ও আক্তার হোসেন বাদী হয়ে দুটি মামলা করেন।

একটিতে প্রধান আসামি করা হয় ভাষানিয়া ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান কামরুল ইসলামকে এবং অপরটির প্রধান আসামি করা হয় মো. সাদেক হোসেন সরকারকে। এ ঘটনায় দুটি মামলার এজাহার নামীয় আটজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বাজার ও আশপাশের এলাকা পুরুষশূন্য হয়ে পড়েছে। ওই এলাকায় যানবাহন চলাচল নেই বললেই চলে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার বিকেলে উপজেলার ভাষানিয়া ইউনিয়নের ওমরাবাদ গ্রামের সিএনজি অটো রিকশা চালক মো. সাব্বির সিএনজি অটোরিকশা নিয়ে কাশিপুর গ্রামের কাশিপুর বাজারে যায়। সেখানে কাশিপুর গ্রামের কয়েকজন লোকের সামনে জোরে হর্ন বাজাতে থাকলে গ্রামের এক ব্যক্তি ওই চালককে চড় থাপ্পড় মারে।

সিএনজি অটোরিকশা চালক সাব্বির এ ঘটনা তার গ্রামের লোকজনকে জানায়। খবর পেয়ে ওই দিন বিকেলে ওমরাবাদ গ্রামের কয়েকশ লোক লাঠি নিয়ে কাশিপুর বাজারে কাশিপুর গ্রামবাসীর ওপর হামলা করে। পরে কাশিপুর গ্রামের লোকজন হয়ে পাল্টা হামলা করে। এরই জের ধরে পরের দিন শনিবার আবারো দুই গ্রামবাসীর মধ্যে কাশিপুর বাজারে হামলা ও সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে কাশিপুর বাজারের অন্তত ১৬টি দোকানে ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। এতে গ্রামের অন্তত ২০ জন আহত হয়। শনিবার কাশিপুর বাজারে হোমনা, মেঘনা, তিতাস, মুরাদনগর ও জেলা থেকে ডিবি পুলিশসহ অতিরিক্ত দাঙ্গা পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

হোমনা থানার ওসি আবুল কায়েস আকন্দ বলেন, হর্ন বাজানোকে কেন্দ্র করে ওমরাবাদ এবং কাশিপুর গ্রামের মধ্যে দুই দিন সংঘষের্র ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় রোববার দুটি মামলা হয়েছে। এতে একপক্ষে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুল ইসলাম অপরপক্ষে মো. সাদেক হোসেন সরকারকে আসামি করে মামলা হয়েছে। দুইপক্ষের আটজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here