কেউ মানছে না চলমান বিধিনিষেধ

নিজস্ব প্রতিনিধিঃদেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে ১০ আগস্ট পর্যন্ত চলমান বিধিনিষেধ বৃদ্ধি করা হলেও জনসাধারণ যেন সেসবের কোনো তোয়াক্কাই করছে না। মানুষের এমন বেপরোয়া আচরণে অনেক অংশেই ভেঙে পড়েছে চলমান বিধিনিষেধ।

রোববার (৮ আগস্ট) রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ও সড়ক-মহাসড়ক ঘুরে এ চিত্র দেখা গেছে। মানুষ এমন বেপরোয়া হয়ে ওঠায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীও অনেকটা হাল ছেড়ে দিয়েছে।

চলমান বিধিনিষেধে হোটেলগুলোতে শুধু হোম ডেলিভারির অনুমতি থাকলেও এখন তা বলতে গেলে কেউই মানছেন না। আর দোকান-পাটও স্বাভাবিক সময়ের মতো গভীর রাত পর্যন্ত খোলা রাখতে দেখা গেছে। এসব এলাকায় আগে বিকেলের দিকে পুলিশের টহল থাকলেও এখন তার তা দেখা যায় না।

একজন দোকানদারের কাছে বিধিনিষেধ না মানার কারণ যানতে চাইলে বলেন, ব্যবসা বন্ধ থাকলে পেটে খাবার জোটে না, আমাদেরও তো পরিবার আছে, সরকার আমাদের জন্য অন্য ব্যবস্থা করলে সব নিয়ম-ই মানতাম মামা।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে গিয়ে দেখা গেছে যানবাহন ও মানুষে সরগরম। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীগুলোর শিথিলতার সুযোগে বাসও চলছে, যথারীতি যাত্রীও টানছে তারা। তবে বাস ও অন্যান্য গণপরিবহনের স্বাভাবিক চলাচল শুরু না হওয়ায় অনেককেই পিকআপ ও ভ্যানগাড়িতে করে কর্মস্থলসহ বিভিন্ন গন্তব্যে যেতে দেখা গেছে।

চলমান বিধিনিষেধের শুরুর দিকে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীগুলো ঘটা করে চেকপোস্ট বসিয়ে ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে নিয়ম ভঙ্গকারীদের শাস্তি দিত, সেই কার্যক্রমও অনেকটা স্থিমিত পেয়েছে। গত ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে ১৪ দিনের কঠোর বিধিনিষেধ জারি করে সরকার। সেই বিধিনিষেধের মেয়াদ গত ৫ আগস্ট রাত ১২টায় শেষ হয়। পরে কিছুটা শিথিলতা এসে বিধিনিষেধের মেয়াদ আগামী ১০ আগস্ট পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

আর আগামী ১১ আগস্ট থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সবকিছু সীমিত পরিসরে খুলবে বলে সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here